Wednesday , 21 October, 2020

মাত্র ৩ ফুট উচ্চতা শরীরের , অদম্য জেদ বহু কঠিন ল’ড়াইয়ের পর আজ তিনি IAS অফিসার।

আমরা অনেক সময় রাস্তাঘাটে দেখি, যারা বামন হয়, অর্থাৎ যাদের উচ্চতা স্বাভাবিকের থেকে অনেকটাই কম, তাদের দেখে অনেকেই পরিহাস করেন। কিন্তু শারীরিক প্রতিবন্ধকতা যে কোনো প্রতিবন্ধকতাই নয়, তা বারবার প্রমান করে দিয়েছেন অনেক মানুষ। তাদেরই মধ্যে একজন হলেন রাজস্থান ক্যাডারের আইএএস অফিসার আরতি।আরতী ডগরা উত্তরাখণ্ডের মেয়ে। মাত্র ৩ ফুট উচ্চতা তার।

জীবনের প্রথম ভাগ থেকেই তথাকথিত সমাজের বিদ্রুপের মুখে পড়তে হয়েছে তাকে। গোটা সমাজ তাকে বৈষম্যের চোখে দেখত। কিন্তু কখনোই মনের জোর হারিয়ে যায়নি আরতির।

তার উচ্চতা নিয়ে যারা হাসাহাসি করত, তাদের নিজের সাফল্য দিয়ে চুপ করিয়ে দিয়েছে আরতী। আরতী ডোগরা এখন রাজস্থান ক্যাডারের আইএএস অফিসার। যে সমস্ত মেয়েদের উচ্চতা কম, বা যাদের অন্যান্য শারীরিক প্রতিবন্ধকতা আছে, তাদের প্রত্যেকের রোল মডেল হয়ে উঠেছে আরতী।

গোটা সমাজ আরতিকে নিয়ে ঠাট্টা করলেও নিজের মেয়েকে ক্রমাগত সাহস জুগিয়ে গেছে তার বাবা-মা। আরতির বাবা রাজেন্দ্র ডোকরা সেনাবাহিনীর অফিসার। তার মা কুমকুম ডোকরা স্কুল শিক্ষিকা।

আরতী জন্মের সময়ই ডাক্তার তাদের বলে দেন, তাদের সন্তান অন্যান্য শিশুদের মত সাধারণভাবে স্কুলে পড়াশোনা করতে পারবে না। সময়ের কালি বড় হলেও উচ্চতা বাড়েনি আরতির। ফলে বারবার সমাজের বঞ্চনার শিকার হতে হয়েছে তাকে।

কিন্তু আরতির বাবা-মায়ের একটাই কথা ছিল, আমাদের এই সন্তানই আমাদের একদিন স্বপ্ন পূরণ করবে। আজ বাবা-মা সেই কথা রেখেছে আরতী। এখন সকলের মুখে শুধু আরতী র নাম। এমনকি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির একজন স্নেহের পাত্র তিনি।

তাই বর্তমানে আরতি নিজের কার্যালয়ে অনেক বড় বড় কাজ করেছেন। প্রত্যেকের মুখে মুখে এখন তারই নাম। সমাজের বহু মানুষ তাকে ছোট করলেও, তিনি কখনো কোনো মানুষকে অসৎ হিসেবে দেখেন নি।

আরতির কাছে প্রত্যেক মানুষ সমান। উনি যে বঞ্চনা ছোটবেলা থেকে সহ্য করেছেন, সেই বঞ্চনার শিকার তিনি অন্য কাউকে হতে দেবেন না, এই কথায় প্রতিমুহূর্তে বলে যান তিনি।

About Lipu Chowdhury

Check Also

উপরে যেতে পারছিলেন না বৃদ্ধা, সিঁড়িতেই আদালত বসালেন বিচারক।

আদালতের সিঁড়ি বেয়ে উঠতে পারছিলেন না এক বৃদ্ধা। হতাশ হয়ে বসেছিলেন সিঁড়ির গোড়ায়। পরে খবর ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *