দুবাই শহর সম্পর্কে অজানা তথ্য জেনে নিন

বিলাসবহুল দুবাই শহর (Dubai City)-সম্পর্কে কে না জানতে চায়? দুবাই শহর সারা বিশ্বের মধ্যে সারা ফেলেছে কর্মকান্ডের মাধ্যমে। আবুধাবির মধ্যে অবস্থিত দুবাই শহরটি উন্নত হয়ে তেল উৎপাদন করে। তাদের রয়ছে অফুরন্ত তেলের খনি। কিন্তু বর্তমানে দুবাই তেল উৎপাদন করে শহর উন্নত করে না। তাঁরা এখন বিভিন্ন পর্যটন খাত থেকে ও ব্যবসায় মেধাশক্তিকে কাজে লাগিয়ে উন্নত হচ্ছে। তেলের টাকায় ধনী হয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাতের মধ্যে অন্যান্য শহরগুলোও। সংযুক্ত আরব আমিরাতের মধ্যে সবচেয়ে সুন্দর ও জনবহুল শহর দুবাই।

এছাড়া দুবাই একটি মুরুভুমির শহর যার চার দিকে শুধু বালি আর বালি। কিন্তু দুবাই শহরকে সবাই স্বপ্নের শহর বলে থাকে। অনেকে আরো বলে থাকে দুবাই একটি দেশ, কিন্তু আসলে দুবাই হচ্ছে একটি শহর।

সংযুক্ত আরব আমিরাত গঠিত হয়েছে সাতটি আমিরাতের সমন্বয়। আর এই আমিরাতগুলো হচ্ছে এক একটি শহর। সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাজধানীর নাম আবুধাবি যার মধ্যে সবচেয়ে বড় শহরটি হচ্ছে দুবাই। দুবাই এতো উন্নত হওয়ার পেছনে রয়েছে করুন ইতিহাস।

সংযুক্ত আরব আমিরাত ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা লাভ করে। দুবাই শহরটি পৃথিবীর মধ্য প্রাচ্যে গঠিত। দুবাই শহরের শাসনকর্তাকে আমির বলে আখ্যায়িত করা হয়। চলুন আমরা দুবাই শহর সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেই।

দুবাই শহরের ইতিহাস

স্বপ্নের শহর দুবাই যার উন্নতি হওয়ার পেছনে রয়েছে অন্ধকার ইতিহাস। অতীতে হাজার হাজার বছর ধরে এই শহরের মানুষ মৌলিক চাহিদার অভাব আর দারিদ্রতার মধ্য দিয়ে জীবনযাপন করত।

১৮শ শতাব্দীর দিকে দুবাই শহরটি একটি মাছধরার গ্রাম ছিলো। কিন্তু বিগত ৫০ বছরে অলৌকিকভাবে এই শহরের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তিত হয়েছে। ধারণা করা হয় দুবাই শহরটি উন্নত হওয়ার পেছনে সবচেয়ে বেশি অবদান রেখেছে খনিজ তেল সম্পদ।

বর্তমানে দুবাই শহরের ৫% এরও কম আয় তেল থেকে আসে। দুবাই শহরের আয়তন ১,৫৮৮ বর্গ কিলোমিটার যা আরব ভূমির মধ্যে অবস্থিত। ২০১৭ সালের হিসেব অনুযায়ী সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই শহরটির মধ্যে প্রায় ২,৭৮৯,০০০ জনসংখ্যা রয়েছে।

বর্তমানে দুবাই এতো ধনী হলো কিভাবে?

যখন আবুধাবিতে তেলের খনি পাওয়া যায় তখন থেকে তাঁরা নানা ভাবে বিভিন্ন দেশে তেল রপ্তানি করত। যার ফলে ধীরে ধীরে আবুধাবী উন্নত হতে থাকে। বর্তমানে দুবাইয়ের আমিরাতিদের প্রতি ৫ জনের মধ্যে একজন কোটিপতি।

দুবাইয়ের তেলের খনি খুব অচিরেই শেষ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। যার কারনে তাঁরা বিলাসবহুল হোটেল, রেস্তুরা, শপিংমল ও বিভিন্ন ব্যবসার খাতে প্রচুর বিনিয়োগ করছে। তাই এখন তাঁরা বাণিজ্যিক ভাবে সবচেয়ে বেশি আয় করে থাকে।

পৃথিবীর বড় শহরগুলোর মতো দুবাইও এর জলপথের কারনে অন্যতম কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে। সুতরাং বর্তমানে এই বিষয়গুলোর কারনে দুবাই একটি ধনী শহর। এছাড়া দুবাই সরকার ২০২১ সালের মধ্যে সবচেয়ে স্মার্ট ও সুখি শহর গড়ে তুলার উদ্যোগ নিয়েছে।

দুবাই সম্পর্কে কিছু অজানা তথ্য

আবুধাবির দুবাই (Dubai)-শহরটি দুই ভাগে বিভক্ত হয়েছে নদির কারনে। যার নামগুলো হচ্ছে “বার দুবাই” ও “দেরা দুবাই”। সাধারণত বার দুবাইকে দুবাইয়ের মূল ভূখন্ড বলা হয়ে থাকে।

এছাড়া বার দুবাইয়ের অর্থ হলো দুবাইর মূল ভূখন্ড। দুবাই নদির পশ্চিম পারে বার দুবাই অবস্থিত। এই বার দুবাইর মধ্যে ধারণ করে আছে দুবাইয়ের প্রাচীন ঐতিহ্য। অন্যদিকে দেরা দুবাই হলো অতি আধুনিক ও আকাশ টঙ্গী অট্টালিকার শহর।

দুবাইয়ের প্রথম সড়কের নাম শেখ জায়েদ রোড। এই রোডের আশাপাশে রয়েছে অসাধারন উচু অট্টালিকা যেগুলো সৌন্দর্য উপভোগ করার জন্য মানুষ দুবাই মেট্রোতে উঠে থাকে। কারণ দুবাই মেট্রো দিয়ে সবচেয়ে ভালোভাবে আকাশ টঙ্গী অট্টালিকা দেখা যায়।

দুবাই শহরের বেশিরভাগ বিল্ডিং তৈরি করা হয়েছে মানুষকে সৌন্দর্য দেখানোর জন্য। যার মধ্যে অনেক বিল্ডিং রয়েছে যেগুলো সম্পূর্ণ ফাকা। দুবাইয়ের বুর্জ খলিফা সারা বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে উচু ভবন। ১৬৩ তলা এই ভবনের উচ্চতা ২৭২০ ফুট। দুবাইয়ের দিকে সারা পৃথিবীর দৃষ্টি আকর্ষন করার জন্যই বুর্জ খলিফা নির্মান করা হয়।

dubai-city

এছাড়া দুবাইয়ের বুর্জাল আরব হোটেল পৃথিবীর সবচেয়ে উচু ও সর্বোচ্চ তারকামান সমৃদ্ধ হোটেল। এই হোটেলটি নির্মান করা হয়েছে একটি কৃত্রিম দ্বীপের উপর।

আরো পড়ুন-

সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই এমন একটি শহর যেখানে পথে ঘাটে সুপার কার দেখা কোনো অস্বাভাবিক কিছু নয়। আপনি শোনলে অবাক হয়ে যাবেন যে দুবাই শহরে স্বর্ণের গাড়িও মানুষ ব্যবহার করে থাকে।

দুবাই বাসিন্দাদের কাছে অধিক সুপার কার থাকার কারনে দুবাইয়ের সরকার পুলিশের কাছে তুলে দিয়েছে অধিক দামি সুপার কার যা সারা বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। তাই দুবাই শহরে কেউ যদি সুপার কার নিয়ে কোনো স্পিড লিমিট অতিক্রম করে তাহলে পুলিশের হাত থেকে পার পাবার কোনো সুযোগ নেই।

এছাড়া আমরা সাধারণত পোষা প্রাণী হিসেবে কুকুর, বিড়াল বা পাখি পোষে থাকি। কিন্তু দুবাই শহরের মানুষ পোষা প্রাণী হিসেবে উট, বাঘ ও বিভিন্ন বন্যপ্রাণী পোষে থাকে। আপনি শোনলে আরো অবাক হবেন যে দুবাইয়ের মানুষ এটিএম বুথ থেকে টাকা লেনদেনের পাশাপাশি সোনাও লেনদেন করতে পারে।

দুবাই বিমানবন্দর সম্পর্কে

প্রতি বছর ৬টি মহাদেশের প্রায় ৯ কোটি যাত্রী দুবাই বিমানবন্দর ব্যবহার করে। দুবাইয়ের অর্থনীতির প্রায় ১৫ শতাংশ আসে দুবাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে। দুবাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের মাধ্যমে পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি আন্তর্জাতিক যাত্রী পারাপার হয়। এছাড়া দুবাই শহরের এই বিমানবন্দরটি পৃথিবীর সবচেয়ে ব্যস্ততম বিমানবন্দর।

দুবাই-বিমানবন্দর

প্রশ্ন আসতে পারে ছোট এই শহরটিতে এতো লোক কোথা থেকে আসে। মূলত ভৌগলিক অবস্থানগত কারনে দুবাই বিমানবন্দরে এতো লোক আসে। দুবাই শরহটি এশিয়া, আফ্রিকা ও ইউরোপ মহাদেশের প্রায়ই মাঝামাঝি জায়গায় অবস্থিত। এরজন্য দুরবর্তি দেশের বিভিন্ন প্লাইটগুলো দুবাই বিমানবন্দর দিয়ে যাত্রা করে।

আপনার কাছে পোষ্ট টি কেমন লেগেছে সংক্ষেপে কমেন্টেস করে জানাবেন ৷ T=(Thanks) V= (Very good) E= (Excellent) আপনাদের কমেন্ট দেখলে আরো ভালো ভালো পোষ্ট দিতে উৎসাহ পাই।

About SM Simol

আমি সিমুল, বিশ্ববিদ্যালয় পড়াশোনা করি ও এর পাশাপাশি আমি একজন আর্টিকেল রাইটার। বিভিন্ন বিষয় নিয়ে এই সাইটে ব্লগ পোস্ট পাবলিশ করি ও "BanglaAdvice.Com"-সাইটের (এডমিন) আমি। আমার সৃজনশীল মেধাশক্তিকে কাজ লাগিয়ে আর্টিকেল তৈরি করে থাকি এবং বিভিন্ন সাইট এর আলোচিত খবর গুলো প্রকাশ করে থাকি ।

Check Also

এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করার উপায়

এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করবেন কিভাবে? [ অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি ]

অনলাইনে মার্কেটিং করার জন্য ডিজিটাল মার্কেটিং এর অন্তর্ভুক্ত এফিলিয়েট মার্কেটিং (Affiliate Marketing)-অনেক জনপ্রিয়। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *